শুক্রবার ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২৬ কোম্পানিকে ঘিরে বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১ | 5902 বার পঠিত | প্রিন্ট

২৬ কোম্পানিকে ঘিরে বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা

জুন ক্লোজিং হওয়া কোম্পানিগুলোর ডিভিডেন্ড ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছে বিনিয়োগকারীরা। ইতিমধ্যে কোম্পানিগুলোর তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। যেসব কোম্পানিতে তৃতীয় প্রান্তিকে আয় বেড়েছে সেগুলো থেকে ভালো ডিভিডেন্ড পাওয়ার প্রত্যাশা নিয়ে বিনিয়োগকারীরা। অন্য খাতের পাশাপাশি বস্ত্র খাতের দুই একটা কোম্পানি ছাড়ার সবগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত হওয়া বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২৬টি কোম্পানিগুলোকে ঘিরে ভালো ডিভিডেন্ড প্রত্যাশা করছে বিনিয়োগকারীরা। কারণ এসব কোম্পানির তৃতীয় প্রান্তিকে আগের বছরের তুলনায় আয় বেড়েছে। যে কোনো কোম্পানির আয়ের উপর ভিত্তি করে ডিভিডেন্ড দিয়ে থাকে। যে কারণে বস্ত্র খাতের ২৬টি কোম্পানিগুলো থেকে ভালো ডিভিডেন্ড পাওয়ার প্রত্যাশা করছে বিনিয়োগকারীরা। কোম্পানিগুলো হল- আমান কটন, আলহাজ টেক্সটাইল, আনলিমা ইয়ার্ন, এপেক্স স্পিনিং, আরগন ডেনিমস, ঢাকা ডাইং, দেশ গার্মেন্টস, ইভিন্টস টেক্সটাইল, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন, এইচআর টেক্সটাইল, ম্যাকসন্স স্পিনিং, মালেক স্পিনিং, মতিন স্পিনিং, মেট্রো স্পিনিং, মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিং, নিউলাইন ক্লোথিংস, কুইন সাউথ, রহিম টেক্সটাইল, সাফকো স্পিনিং, সায়হাম কটন, সায়হাম টেক্সটাইল, শাশা ডেনিম, স্কয়ার টেক্সটাইল, তমিজউদ্দিন টেক্সটাইল এবং তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, কোম্পানিগুলোর মধ্যে গত বছরের তুলনায় তৃতীয় প্রান্তিকে সবচেয়ে বেশি আয় করেছে মতিন স্পিনিং। তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় এক টাকা ৯২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৮৮ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় আয় বেড়েছে এক টাকা ৪ পয়সা।

তৃতীয় প্রান্তিকে আয় বৃদ্ধি পাওয়া অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে-

মালেক স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৯ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ৪৩ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

স্কয়ার টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৩৫ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৭০ পয়সা।

ম্যাকসন্স স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৪ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৩ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৬১ পয়সা।

এইচআর টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৩ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৪৩ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৫০ পয়সা।

মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৯ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ২৬ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

রহিম টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৯ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ৪ টাকা ১৫ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

মেট্রোা স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ২ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

আমান কটনের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১৭ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ২৮ পয়সা।

সায়হাম কটনের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৬ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১১ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ২৫ পয়সা।

রহিম টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২০ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ১৩ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

সায়হাম টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১৩ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১৯ পয়সা।

তমিজউদ্দিন টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩০ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১১ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১৯ পয়সা।

নিউলাইন ক্লোথিংসের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৫৩ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১৮ পয়সা।

আরগন ডেনিমের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২৯ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১৬ পয়সা।

ঢাকা ডাইংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৯ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৪ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১৫ পয়সা।

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৪ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল এক টাকা ৮৫ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

হাউওয়েল টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৪৮ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১৩ পয়সা।

ইভিন্স টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৬ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৪ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ১২ পয়সা।

কুইন সাউথ টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২৬ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৯ পয়সা।

শাশা ডেনিমের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২০ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১৩ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৯ পয়সা।

দেশ গার্মেন্টসের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২০ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১৪ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৬ পয়সা।

সাফকো স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল এক টাকা ৮৫ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

আনলিমা ইয়ার্নের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ১৩ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

এপেক্স স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭৬ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৭২ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৪ পয়সা।

জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ পয়সা। গত বছর একই সময় যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ১২ পয়সা। অর্থাৎ কোম্পানিটি লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরেছে।

শেয়ারবাজার২৪

Facebook Comments Box

Posted ৫:৩১ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১

sharebazar24 |

আর্কাইভ

রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১৩
১৫১৬১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
৩০৩১  
মো. সিরাজুল ইসলাম সম্পাদক
মো. মহসিন হোসেন উপদেষ্টা সম্পাদক
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

৬০/১, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০

হেল্প লাইনঃ 01742-768172

E-mail: [email protected]