শুক্রবার ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডিভিডেন্ড বাড়তে পারে বস্ত্র খাতের ৩০ কোম্পানির

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | 10987 বার পঠিত | প্রিন্ট

ডিভিডেন্ড বাড়তে পারে বস্ত্র খাতের ৩০ কোম্পানির

২১-২২ অর্থবছরে ডিভিডেন্ড বাড়তে পারে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের ৩০ কোম্পানি। এগুলো হলো- আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে, আনলিমা ইয়ার্ন, এ্যাপেক্স স্পিনিং ও নিটিং, আরগন ডেনিমস, দেশ গার্মেন্টস লিমিটেড, ড্রাগন সোয়েটার, এনভয় টেক্সটাইল, এস্কোয়ার নিট, সোনারগাঁও টেক্সটাইল লিমিটেড, ফারইস্ট নিটিং, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস লিমিটেড, হা-ওয়েল টেক্সটাইল লিমিটেড, ম্যাকসন্স স্পিনিং মিলস লিমিটেড, মালেক স্পিনিং মিলস লিমিটেড, মতিন স্পিনিং, মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিং মিলস লিমিটেড, নিউ লাইন ক্লোথিংস, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, কুইন সাউথ টেক্সটাইল লিমিটেড, সাফকো স্পিনিং, সায়হাম টেক্সটাইল, সায়হাম কটন, শাশা ডেনিমস লিমিটেড, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, স্কয়ার টেক্সটাইল, তমিজউদ্দিন টেক্সটাইলের লিমিটেড, তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ এবং ভিএফএস থ্রেড ডাইং লিমিটেড। জুন মাসে আর্থিক বছর শেষ হয়েছে এসব কোম্পানির। জানুয়ারি‘২২-৩১ মার্চ’২২ পর্যন্ত প্রকাশিত অনিরিক্ষিত তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী গত বছরের তুলনায় এ ৩১ কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে। যে কারণে বিনিয়োগকারীরা এসব কোম্পানি থেকে ভালো ডিভিডেন্ড পাওয়ার প্রত্যাশায় রয়েছেন।

ডিএসই সূত্রে জানা যায়, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের ৫৮টি কোম্পানি রয়েছে। যার মধ্যে ৫২টি কোম্পানির তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে ৩০টির আয় বেড়েছে, কমেছে ১২টির এবং লোকসানে জর্জরিত ১০টি কোম্পানি।

আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৪০ পয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় হয়েছিল ৩৫ পয়সা। আগের বছরের তুলোনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৫ পয়সা

আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২২-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ১১ পয়সা। আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১ পয়সা

অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২২-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ১ টাকা ৮৩ পয়সা। আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে এক টাকা ৮৬ পয়সা।

আনলিমা ইয়ার্ন : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৬ পয়সা।

এ্যাপেক্স স্পিনিং ও নিটিং: কোম্পানিটির তৃতীয় প্রান্তিক (জানুয়ারি-মার্চ’২২) শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৮৭ পয়সা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিলো ৭৬ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১১ পয়সা।

আরগন ডেনিমস : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২২-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৭ পয়সা। গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৪২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৫ পয়সা।

দেশ গার্মেন্টস লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২০ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১৪ পয়সা।

ড্রাগন সোয়েটার : ৩১ মার্চ, ২০২২ সমাপ্ত ৩য় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৩২ পয়সা। আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২ পয়সা।

এনভয় টেক্সটাইল: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৭৫ পয়সা, গত বছর একই সময়ে আয় ছিল ২১ পয়সা। আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৫৪ পয়সা।

এস্কোয়ার নিট: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৭৫ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬৯ পয়সা। আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৬ পয়সা।

ফারইস্ট নিটিং: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৯ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২০ পয়সা। আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৩ পয়সা।

জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৪ পয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় হয়েছিল ৩ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১ পয়সা।

হা-ওয়েল টেক্সটাইল লিমিটেড: তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৯৩ পয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৬১ পয়সা আয় হয়েছিল। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৩৪ পয়সা।

ম্যাকসন্স স্পিনিং মিলস লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৮২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৬৪ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১৮ পয়সা।

মালেক স্পিনিং মিলস লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে এক টাকা ৩ পয়সা, গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৯৯ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৪ পয়সা।

মতিন স্পিনিং : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৪৩ পয়সা। আগের বছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১ টাকা ৯২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৫১ পয়সা।

মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিং মিলস লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৭৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৪৯ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২৫ পয়সা।

নিউ লাইন ক্লোথিংস: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে আয় ছিল ৪০ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১২ পয়সা।

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল : ৩১ মার্চ, ২০২২ সমাপ্ত ৩য় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৯৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৯২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৩ পয়সা।

কুইন সাউথ টেক্সটাইল লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫১ পয়সা। গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৩২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১৯ পয়সা।

সাফকো স্পিনিং: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.০৫ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৫ পয়সা।

সায়হাম টেক্সটাইল: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১৯ পয়সা।

সায়হাম কটন: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫৭ পয়সা, গত বছর একই সময়ে আয় ছিল ৩৬ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২১ পয়সা।

শাশা ডেনিমস লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২২-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ২০ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৩৫ পয়সা।

শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে যার শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ২০ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২০ পয়সা।

সোনারগাঁও টেক্সটাইল লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২২-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ৪ পয়সা। গত বছর একই সময়ে যার লোকসানের পরিমাণ ছিল ৪১ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৪৫ পয়সা।

স্কয়ার টেক্সটাইল: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ৪৭ পয়সা, গত বছর একই সময়ে আয় ছিল ১ টাকা ০৫ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে এক টাকা ৪২ পয়সা।

তমিজউদ্দিন টেক্সটাইলের লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে এক টাকা ৬৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩০ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৩৪ পয়সা।

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৫ পয়সা, গত বছর একই সময়ে আয় ছিল ১৩ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২২ পয়সা।

ভিএফএস থ্রেড ডাইং লিমিটেড : তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫১ পয়সা। গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৪১ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১০ পয়সা।

শেয়ারবাজার২৪

Facebook Comments Box
বিষয় :

Posted ৮:৫৮ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

sharebazar24 |

আর্কাইভ

রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১৩
১৫১৬১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
৩০৩১  
মো. সিরাজুল ইসলাম সম্পাদক
মো. মহসিন হোসেন উপদেষ্টা সম্পাদক
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

৬০/১, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০

হেল্প লাইনঃ 01742-768172

E-mail: [email protected]